Login to your account

Username *
Password *
Remember Me
Sunday, 14 April 2024

Saturday, 14 October 2023
সিলেট রেঞ্জ কর্তৃক চলমান বিশেষ অভিযানের অংশ হিসাবে নবীগঞ্জ থানার পুলিশের অভিযানে পিকআপ গাড়ী,গরুসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানাযায়, শুক্রবার নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুক আলীর নির্দেশনায় নবীগঞ্জ থানার একদল পুলিশ শুক্রবারে বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে জিআর-১৬১/২২ এবং সিআর-২১৮/২৩ মামলার ওয়ারেন্ট ভূত্ত পলাতক আসামী রানীগাঁও গ্রামের এনাম উদ্দিন এর পুত্র আব্দুল আজিজ, ফুটারমাটি গ্রামের মাজিদ আলীর পুত্র ইয়ার হোসেন গ্রেফতার করেন। তাছাড়া অভিযান পরিচালনা করে চোরাইকাজে ব্যবহৃত নাম্বার বিহীন একটি পিকআপ গাড়ী এবং ২টি চোরাই গরুসহ সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক এলাকার সেলিম মিয়ার পুত্র ইসমাঈল (২৫)কে গ্রেফতার করা হয়। নবীগঞ্জ থানার মামলা নং-০৭, তারিখ -১৪/১০/২৩খ্রিঃ, ধারা-৪৫৭/৩৮০/৪১১ পেনাল কোড মামলা রুজু করা হয়।শনিবার সকালে গ্রেফতারকৃত আসামীদের হবিগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুক আলী।
Published in Local News

উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের এনাতাবাদ গ্রামে সালমা বেগম (১৭) নামের এক কিশোরী গলায় ফাসঁ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। সে ওই গ্রামের হেলাল মিয়ার কন্যা। গতকাল শুক্রবার (১৩ অক্টোবর) সকালে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। পুলিশ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, সালমা বেগম গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে পরিবারের সকলের সাথে খাওয়া দাওয়া শেষ করে ঘুমিয়ে থাকে। শুক্রবার ভোর বেলা পরিবারের লোকজন ঘুম থেকে উঠে সালমা বেগমকে ঘরের বারান্দায় পড়নের ওড়না দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে থানায় খবর দিলে এসআই মামুনুর রশিদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করে হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরন করেন। নিহত সালমা বেগম চলতি এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতকার্য হয়। ধারনা করা হচ্ছে আত্মহত্যার কারনে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হতে পারেনি।  আবার অনেকেই মনে করচ্ছেন তার পিতা তাকে  ফজরের নামায না পড়ায় গালি গালাজ  করেছিলেন এজন্য হতে পারে তাছাড়া সঠিক করে তার আত্মহত্যার কোন কারন জানা যায়নি।

Published in Local News

যানজট বর্তমানে নবীগঞ্জ বাসীর জীবনে এক ভয়াবহ সমস্যা কারন হয়ে দেখা দাড়িয়েছে। যানজটের কারণে নির্দিষ্ট সময়ে কর্মস্থলে বা গন্ত্যবে পৌঁছানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে। যানজট নবীগঞ্জের নাগরিক জীবনের নিত্যদিনের এক অসহনীয় ব্যাপারে পরিণত হয়েছে। যতই ক্ষোভ ও বিরক্তির কারণ হোক, এর হাত থেকে কেউই রেহাই পাচ্ছে না। নবীগঞ্জ শহরের  তীব্র যানজটের  পাশাপশি রয়েছে  শহরের প্রধান রাস্তা গুলোর বেহাল দশা, এসব যেন দেখার কেউ নেই। যান চলাচলের রাস্তার স্বল্পতা, অপরিসর রাস্তার মোড়ে মোড়ে ফুটপাত এর দোকান বসিয়ে রাস্তা দখল করে, এবং সিএনজি, মিশুক ও বাস থামিয়ে যাত্রী তোলা ও নামানো, অনিয়ন্ত্রিত ট্রাফিক ব্যবস্থা, হকারদের ফুটপাত দখল ইত্যাদি ছাড়াও অনেক কারণ রয়েছে। সচেতন মহল মনে করেন, এই সব দেখার যেন কেউ নেই?  এ নিয়ে সর্ব মহলে আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে, যানযট নিরসনের নেই কোনো ভূমিকা নেই ট্রাফিক পুলিশের। এতে প্রতিদিনই সৃষ্টি হচ্ছে যানজট, এতেই বাড়ছে  জনগনের ভোগান্তি। জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে যানযট নিরসনের দায়িত্ব কার.? এ সব দেখার কি কেউ নেই.? ট্রাফিক পুলিশ কোথায়.?এ সব কেন প্রশাসনের  নজরে আসছেনা। যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত সার্জেন্টের  রহস্যজনক নিরব ভূমিকা নিয়েও সচেতন মহলে নানা প্রশ্ন সৃষ্টি হয়েছে। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে ঘুরে দেখা যায় নেই ট্রাফিক পুলিশের কোন তৎপরতা। স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থীরা, চাকুরীজীবি, কর্মজীবিও পেশাজীবি সহ নাগরিকদের চরম ভোগান্তিও সৃষ্টি হচ্ছে এই যানজটের কারনে। উপজেলা প্রশাসন যানজট নিরসনে উদ্যোগী ভূমিকা নেয়ার জন্য একাধিকবার আইন শৃঙ্খলা মিটিংয়ে পৌরসভাকে তাগিদ দেয়ার পরেও পৌর কর্তৃপক্ষের নীরবতায় হতাশা দেখা দিয়েছে। এক পথচারী এই প্রতিবেদকে বলেন, নবীগঞ্জ শহর এখন রাজধানীর মতো হয়ে গিয়েছে। তীব্র যানজটে করণ হচ্ছে হকাররা ফুটপাত দখল করে, এই ফুটপাতের দোকান গুলোর জন্য গাড়ি নিয়ে যাওয়াতো দূরের কথা পায়ে হেটে যাওয়া ও কষ্টকর। যানজটে আটকা পড়া এক এম্বুলেন্স চালক বলেন, রোগী নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা জামে আটকা পড়ে আছি। গাড়ির ভিতরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন এক রোগী। যানজট নিরশনে এখন পর্যন্ত কোন ট্রাফিক পুলিশ দেখতে পাইনি। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ অটোরিক্সা, মিশুক টমটম, ভ্যান,ইজিবাইক, শ্রমিক সমন্বয়ে গঠিত যাহার  নবীগঞ্জ উপজেলা শাখার মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি রুস্তম আলী বলেন, নবীগঞ্জবাসীকে যানযট নিরসনের জন্য আমাদের সংঘটনের পক্ষ থেকে ৫ জন কমিউনিটি ট্রাফিক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ যদি সহযোগিতা করেন। তাহলে আশা করি অচিরেই নবীগঞ্জ শহরকে যানযট মুক্ত শহর হিসেবে গড়ে তুলতে পারবো।  সাধারণ সম্পাদক মোঃ সেলিম মিয়া বলেন, নবীগঞ্জে যানজট সৃষ্টি হওয়ার প্রধান কারণ হচ্ছে। ফুটপাত এর দোকান বসিয়ে রাস্তা দখল করা ছাড়াও অনেক কারণ রয়েছে। আমরা আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে যানযট নিরসনের জন্য কমিউনিটি ট্রাফিক এর ব্যবস্থা করেছি। আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর স্মারকলিপি দিয়ে ছিলাম। এবং রাস্তা দখল মুক্ত করার জন্য আজ থেকে তিন বছর পূর্বে উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ফুটপাত এবং রাস্তা দখল মুক্ত করেছিলেন। কিন্তু ইদানিং ও রাস্তা দখল যেই সেই আগের মত হয়ে গেছে যার ফলে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব ছাব্বির আহমেদ চৌধুরী বলেন, যানযট নিরসনে বেশ কয়েক বার উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী সহ সকলের সহযোগীতায় ১ মাস ব্যাপি অভিযান চালিয়ে যানযট জিরো টলারেন্সে নিয়ে এসেছিলাম। তিনি আরো বলেন, একমাত্র আমার সময়ে এ রকম উদ্যোগী ভূমিকা নিয়ে ছিলাম। আমি মনে করি শহরের ড্রেনের কাজ শেষ হয়ে গেলে, এভাবে আর যানযট সৃষ্টি হবে না। আমি নবীগঞ্জ বাসীকে বলতে চাই, এই নবীগঞ্জ আমাদের আমরা সবাই এগিয়ে এসে এর সমধার করা দরকার।

Published in Local News
  1. Popular
  2. Trending
  3. Comments

Calender

« October 2023 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
            1
2 3 4 5 6 7 8
9 10 11 12 13 14 15
16 17 18 19 20 21 22
23 24 25 26 27 28 29
30 31