Login to your account

Username *
Password *
Remember Me
Sunday, 26 May 2024

Monday, 01 April 2024

হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলায় নদীর তীরবর্তী বাসিন্দাদের না জানিয়ে জাইকা প্রকল্পের অধীনে নদী খনন করতে চাইলে এলাকার সচেতন মহল ফুঁসে উঠেছেন। তার প্রতিকার চেয়ে দুটি ওয়ার্ডের ৭টি গ্রামের লোকজন গণস্বাক্ষর দিয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও প্রকৌশনীর কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের সূত্রে প্রকাশ-ওই  উপজেলার ৪ নং দীঘলবাক ইউনিয়নের ,৬,৭ ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের মধ্যবর্তীস্থান ঘেঁসে বয়ে গেছে নরখাই নদী। কালের বিবর্তে নদীর কোনো কোনো স্থান চর হয়েছে।  ওই ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের দু,বারের ইউপি সদস্য খালেদ হাসান দুলন তার নিজস্ব লোক নিয়ে একটি  কমিটি ও পরে সমিতি গঠন করে জাইকা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেন। এতে কয়েক কোটি টাকা বরাদ্ধ মন্জুর হয়। সম্প্রতি ওই নদীর তীরবর্তী ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সচেতন মহল নদী খননের সংবাদ পেয়েছেন। এরই মধ্যে জাইকা প্রকল্পের লোকজন নদীর সীমানা নির্ধারন করতে সরেজমিনে আসেন।  এসময় কয়েক গ্রামের লোকজনদের বাঁধার মুখে তারা স্থান ত্যাগ করেন। পরে  ওই এলাকার  কয়েক গ্রামের হাজারো লোকজন কয়েক দফায় কামারগাঁও গ্রামের জনৈক শামীম মিয়ার বাড়িতে বৈঠক করেন। সকলের সম্মতিতে নরখাই নদী রক্ষায় দেড়শতাধিক লোকের সমন্বয়ে একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। পরে ওই ৩ টি ওয়ার্ডের সচেতন মহলের লোকজন গনস্বাক্ষর নিয়ে গত ২৮ মার্চ নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রকৌশলীর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ষাটোর্ধ্ব বয়সের বৃদ্ধ বলেন ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য খালেদ হাসান দুলন ও তার লোকজন যদি এলাকার সচেতন মহল ও মান্যগণ্য লোকজনদের সমন্বয়ে ও সহযোগীতা নিয়ে কমিটি বা সমিতি করে নদী খননের কাজে হাত দিতেন তাহা হলে ভালো হতো। কিন্তু তারা বিপরীত কাজ করায় এলাকার জনগন ফুঁসে উঠেছেন। ওই এলাকার লোকজনদের একটাই দাবি যাদের কাছে অভিযোগ দেয়া হয়েছে তারা যদি নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করেন তাহা হলে ওই এলাকা শান্ত থাকবে। নতুবা আইনশৃঙ্খলার অবনতির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Published in Local News

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ক্রাইমজুন হিসাবে পরিচিত ৪নং দীঘলবাক ইউনিয়নের ফাদুল্লা- দৌলতপুর গ্রামে ডাকতির প্রস্তুতিকালে দুই ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ।শনিবার (৩১মার্চ) রাতে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো, দীঘলবাক ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের মৃত আব্দুল মালিকের পুত্র শামিম মিয়া (৩৩), ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের তৈয়ব উল্লার পুত্র আরজান মিয়া (৩৫)কে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত শনিবার রাতে গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মাসুক আলী দিকনির্দেশনায় ও এসআই মামুনের নেতৃত্বে একদল পুলিশের বিশেষ অভিযানে চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো: মাসুক আলী গ্রেফতারকৃত গরু চোরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতারকৃতদের হবিগঞ্জ বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

Published in Local News
  1. Popular
  2. Trending
  3. Comments

Calender

« April 2024 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
1 2 3 4 5 6 7
8 9 10 11 12 13 14
15 16 17 18 19 20 21
22 23 24 25 26 27 28
29 30