October 7, 2022
নবীগঞ্জের সংবাদ

নবীগঞ্জের সংবাদ (1787)

নবীগঞ্জে শালুক তুলতে গিয়ে বজ্রপাতে আব্দুল হামিদ (৩৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় জিতু মিয়া নামের অপর এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার দুপুরে গুনগিয়াজুরি হাওড়ের ফুকলারপাড়া নামকস্থানে।নিহত আব্দুল হামিদ নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বড় আলীপুর গ্রামের শুকুর মিয়ার পুত্র। গুরুতর আহত জিতু মিয়া একই গ্রামের নোওয়াব উল্লার পুত্র।স্থানীয়রা সূত্রে জানাযায়, দুপুরে বৃষ্টির সময় গুনগিয়াজুরি হাওড়ে শালুক তুলতে গিয়েছিলেন হামিদ ও জিতু। মুহূর্তেই বজ্রপাতের বিকট শব্দ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন আব্দুল হামিদ ও গুরুতর আহত হন জিতু মিয়া।এ সময় স্থানীয়রা তাদের দুজনকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হামিদ মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত জিতু মিয়াকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ও পৌর পরিষদের উদ্দ্যেগে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন করা হয়। এ দিন সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত অবস্থায় উত্তোলন করা এবং শোক র‌্যালি অনুষ্টিত হয় সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা পরিষদের অভ্যন্তরে বঙ্গবন্ধুর ম্যুারালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন হবিগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য শাহনেওয়াজ মিলাদ গাজী।এসময় উপস্থিত ছিলেন,নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম,উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা শেখ মহি উদ্দিন,সহকারী কমিশনার (ভূমি) উত্তম কুমার দাশ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এডঃ গতি গবিন্দ দাশ, ভারপ্রাপ্ত মেয়র জায়েদ চৌধুরী,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাঃ আব্দুস সামাদ ,নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ডালিম আহমেদ,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাকসুদুল করিম,শিক্ষা অফিসার সাদেক খান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু সিদ্দিক, বর্তমান যুগ্ম সম্পাদক কাজ্বী ওবায়দুর কাদের হেলাল, এডঃ মুজিবুর রহমান কাজল, ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব,ইউপি নির্মেলেন্দু দাশ রানা,রঙ্গলাল রায়,নোমান আহমেদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজভী আহমেদ খালেদ,উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহব্বায়ক লোকমান আহমেদ খান,নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র ২ আব্দুস ছোবান, প্যানেল মেয়র-৩ ফারজানা পারুল, কাউন্সিলর জাকির হোসেন, ফজল আহমদ চৌধুরী,কবির মিয়া, নিবার্হী প্রকৌশলী তারিকুল ইসলাম, উপ সহকারী প্রকৌশলী অরুন চন্দ্র দাশ,  প্রধান সহকারী সরাজ মিয়া, সহকারী কর আদায়কারী পৃর্থি¦শ চক্রবর্তী, সহকারী এ্যাসেসর উমা রানী বনিক, কার্য সহকারী মোঃ আবু মুসা,হিসাব সহকারী জুয়েল চৌধুরী, আব্দুল আহাদ মিয়া আবু বক্কর, শেখ আল- আমিন প্রমুখ।এছাড়া ফুল শ্রদ্ধা জানায়, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ, আওয়ামী যুবলীগ, ছাত্রলীগ, থানা প্রশাসন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, এলজিডি, সাংবাদিক সমিতি, ব্যাংক বীমা, নবীগঞ্জ জোনাল অফিস পল্লী বিদ্যুৎ, এনজিও কর্মীসহ বিভিন্ন সংঘঠনের নেতাকর্মীরা।এদিন সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে একটি শোক র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলা চত্বরে মিলিত হয়। সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে উপজেলা অডিটিরিয়াম ভবনে এক আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অপরদিকে নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীলের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, কালো ব্যাচ ধারণ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের আউশকান্দি শহীদ কিবরিয়া চত্বরে ডাকির প্রস্তুতিকালে ৫ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২ ঘটিকায় আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র,একটি পাইপগান গ্রিলকাটার,চিরাপাঞ্জা,রামদা,জি আই পাইপ,  ১টি পিকআপ গাড়ীসহ ডাকাতদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো,উপজেলার বাউশা ইউনিয়নের হরিধরপুর গ্রামের ফটিক মিয়ার পুত্র রুবেল মিয়া,(২৯), করগাও ইউনিয়নের সাকুয়া গ্রামের আঃ গনির পুত্র মোঃজাহাঙ্গীর (২৫), কালিয়ার ভাঙ্গা ইউনিয়নের মৃত আঃ গনির পুত্র মো মহিবুর রহমান (২৮),সিলেট বালাগঞ্জের মোখলিছ খানের পুত্র রুজেল খান(ময়না মিয়া ২৪),ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের বাজার চড়া গ্রামের হাজী তাহির উল্লাহ পুত্র জাহাঙ্গীর আলম (জাহান)( ২২)।পুলিশ সূত্রে জানাযায়,বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা ডাকাতি করার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নবীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে এস,আই জাহাঙ্গীর আলম, গৌতম সরকার,আবু সাঈদ, রাজিব রহমান,বিজয় দেবনাথ মোস্তাফিজুর রহমান, এএস আই বিমল দাসসহ একদল পুলিশের বিশেষ অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত ডাকাতদের শুক্রবার বিকেলে হবিগঞ্জ কোর্টে প্রেরণ করা হয়। গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ডালিম আহমেদ।

নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের ৬ সন্তানের জননী আম্বিয়া বেগম (৪৫) নামের এক মহিলার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে নবীগঞ্জ থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে নবীগঞ্জ থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে আসেন। আম্বিয়া বেগম উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের বনগাঁও গ্রামের মৃত ইসলাম উদ্দিনের স্ত্রী।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, আম্বিয়া বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন রোগী ছিলেন। পরিবারের লোকজন তাদের ঘরের তীরে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে নবীগঞ্জ থানা পুলিশকে অবগত করলে নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ডালিম আহমেদের নির্দেশনায় এসআই গৌতম দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেন। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার এসআই গৌতম দাশ বলেন, আম্বিয়া বেগম মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন।

ইউরোপের দেশ গ্রিসে ঝরে গেলেন নবীগঞ্জের একজন রেমিট্যান্স যোদ্ধা। আজির উদ্দিন নামের এই গ্রিস প্রবাসী দীর্ঘদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে গত ৮ আগষ্ট সোমবার গ্রিসের স্থানীয় সময় বিকেল ৪ ঘটিকার দিকে এথেন্সের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। আজির উদ্দিন নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের সুজাপুর গ্রামের মোতাহির আলীর পুত্র।জানাযায়, জীবিকার তাগিদে প্রায় ৫ বছর পূর্বে প্রবাসে পাড়ি জমান আজির উদ্দিন। তুরস্ক হয়ে গ্রিসে প্রবেশ করে এথেন্সের ওমোনীয় এলাকায় একটি বাংলাদেশি মালিকানাধীন সেলুনে চাকুরী করেন আজির। চলতি বছরের প্রথম দিকে অসুস্থতাজনিত কারণে বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেন। এরপর বাসায় ফিরে মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত হন। এ অবস্থায় গত ১৪/০৩/২২ইং তারিখে বাসা থেকে বের হয়ে আর ফিরেনি। তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে খবর প্রচার হয়। এরপর গত ১৭ এপ্রিল খোঁজ মিলে একটি হাসপাতালে। এরপর থেকে সেই হাসপাতালেই চিকিৎসা চলছিল। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত সোমবার গ্রিসের স্থানীয় সময় বিকেল ৪ টার দিকে তার মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। তার মৃতদেহ দেশে আনার দাবী জানিয়েছেন স্বজনরা।এ প্রসঙ্গে গ্রিসের বাংলাদেশি সাংবাদিক ইউরো বাংলা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না বলেন, হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করায় এখানে অনেক আইনি জটিলতা রয়েছে। বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের সার্বিক সহযোগীতায় ও গ্রিসের বাংলাদেশ দূতাবাসের তত্ত্বাবধানে যথাযত প্রক্রিয়ায় লাশ দেশে পাঠানো হবে। সব কিছু সম্পন্ন করে লাশ দেশে নিতে ৭-৮ দিন সময় লাগবে। বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের সভাপতি লাশটি দেশে পাঠানোর জন্য ইতিমধ্যে আইনি প্রক্রিয়ায় কার্যক্রম শুরু করেছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশটি বাংলাদেশ কমিউনিটির নিকট হস্তান্তর করলে এথেন্সে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। পরে লাশটি কার্গো বিমানের মাধ্যমে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করবে দূতাবাস।

নবীগঞ্জের কুর্শি  ইউনিয়নের বাজকাশারা গ্রামে সম্পত্তির বিরোধ নিয়ে  আপন ভাই,ভাতিজা ও পুত্রের হামলায় খুর্শেদ আলী (৫০) নামের এক ব্যাক্তি আহত হয়েছেন।  এ ঘটনায় তিনি নবীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, উল্লেখিত গ্রামের মৃত বাজিদ উল্লাহ পুত্র খুর্শেদ আলী, সাথে তার আপন বড়  ভাই এরশাদ আলীর সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। খুর্শেদ আলীর পূর্বে স্ত্রীর ছেলে কাওসার মিয়াকে সম্পত্তি  থেকে বঞ্চিত করতে  এরশাদ আলী, তার পুত্র জুবেদ মিয়া, খুর্শেদ মিয়ার স্ত্রী রেনু বেগম, ও তার পুত্র জসিম ও মহসিন মিয়া গত বৃহস্পতিবার রাতে জোর পুর্বক কাগজে তার স্বাক্ষর (টিপ) নিয়ে চাপ প্রয়োগ করেন। সে কাগজে (ষ্টাম্পে) স্বাক্ষর (টিপ) না দিলে তাকে উল্লেখিত সকলে মারধর করেন। তার আতœ চিৎকারে আশ পাশের লোকজন এগিয়ে আসলে তিনি প্রাণে রক্ষা পান। পরে তাকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়।  এ ঘটনায় তিনি ৫ জনের নাম উল্লেখ করে নবীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সামাজিকভাবে বিষয়টি সমধান করার চেষ্টা করে ব্যর্থ হন সালিশ বিচারকগন। সালিশ ও থানায় অভিযোগ করার কারনে খুর্শেদ আলী বাড়িতে থাকতে পারছেন না। তাকে প্রতি নিয়তই খুন জখম করার হুমকি দিতেছে বিবাদীগংরা।আসামীদের ভয়ে তিনি বাড়ি থেকে পালিয়ে বোনের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন বলে তার অভিযোগে উল্লেখ করেছেন। তিনি পুলিশসহ প্রশাসনের সহযোগীতা হস্তক্ষেপ কামনা করেচ্ছেন।    

সাবেক মন্ত্রী ও নৌবাহিনী প্রধান রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের ৩৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ৭ আগস্ট  রবিবার  বাদ আছর  পুর্বলন্ডনের রিজেন্টস লেকে  অনুষ্ঠিত হয়। রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খান স্মৃতি সংসদ যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা. খতমে কোরআন, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে যোগদেন মরহুমের জামাতা ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান ও মরহুমের কনিষ্ঠ কন্যা ডাঃ জুবাইদা রহমান।মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে আগত সকল অতিথি ও সংগঠনের সকল কে ধন্যবাদ জানিয়ে দোয়া কামনা করেন রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের জামাতা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান ।স্মৃতি সংসদের সভাপতি সোহেল আহমেদ সাদিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবেদ রাজার পরিচালনায় দোয়াপূর্ব মরহুমের জীবন ও কর্মের উপর সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, বিসিএর সাবেক প্রেসিডেন্ট ও কমিউনিটি নেতা পাশা খন্দকার এমবিই, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি ও স্মৃতি সংসদের প্রধান উপদেষ্টা এম এ মালিক, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা কেএম আবু তাহের চৌধুরী. কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা  ব্যারিস্টার এম এ সালাম, নিউহাম কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার নজির আহমদ, মেজর (অবঃ) আবু বক্কর সিদ্দিক । দোয়া মাহফিলে দেশের কৃতিসন্তান রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয় এবং মরহুমের পরিবারের সকল সদস্যের সুস্বাস্থ্য ও উত্তোরত্তোর সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। এছাড়া দোয়া মহফিলে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও আরাফত রহমান কোকোর রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য কামনাসহ সমগ্র দেশবাসীর জন্য বিশেষ মুনাজাত করা হয়।দোয়া পরিচালনা করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা হাবিবুর রহমান । এছড়াও  পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও তাফসীর করেন মাওলানা আবুল কাহার, মাওলানা হাবিবুর রহমান ও হাফেজ আবিদ মোহাম্মদ।দোয়া মাহফিলে স্মৃতি সংসদের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা আব্দুল মুকিত. সিনিয়র সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন.সহ সভাপতি ফয়ছল আহমদ.সহ সভাপতিখসরুজ্জামান খসরু, আসাদুজ্জামান আহমেদ, সেলিম আহমেদ, মুস্তাক আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমাদুর রহমান এমাদ, খালেদ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহনাজ হোসেন শেনাজ, মাহবুব খান নোমান,  সহ সংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মাসুক. সহ সংগঠনিক সম্পাদক   রুমেল আহমেদ, সহ সংগঠনিক সম্পাদক  বসির আহমেদ ফয়ছল, সহ সংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আলী রিপন, প্রচার সম্পাদক এম আরিফ আহমেদ,  মতিউর রহমান,  আব্দুস সামাদ রাজ, সামছুল ইসলাম, সিহাব উদিদন, শেরওয়ান আলী ।রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের ৩৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দেশে ও বিদেশে গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির বিষয়ে সকল অবহিত করে মরহুমের জ্যেষ্ঠ মেয়ে শাহিনা জামান খানের প্রেরিত প্রেস রিলিজ পাঠ করেন সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান এবং মরহুমের স্মৃতির স্মরণে কনিষ্ঠ কন্যা ডাঃ জুবাইদা রহমানের  লিখিত কবিতা পাঠ করেন  রাসেল শাহরিয়ার । কমিউনিটির বিশিষ্ট মুরব্বীসহ দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাওয়ার হেমলেট কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র  কাউন্সিলর অহিদ আহমেদ, বিএনপির  কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, যুক্তরাজ্য বিএনপি'র সাধারন সম্পাদক কয়সর এম আহমদ, যুক্তরাজ্য বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছ, যুক্তরাজ্য বিএনপি'র সিনিয়র সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সহ সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব, তৈমছু আলী, প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন, মোঃ গোলাম রাব্বানি, গোলাম রাব্বানি সোহেল, মো: তাজুল ইসলাম, সলিসিটর একরামুল মজুমদার. আতিকুর রহমান চৌধুরী পাপ্পু, উপদেষ্টা ফয়জুল হক, বশির আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক পারভেজ মল্লিক, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, মিসবাহউজ্জমান সোহেল, সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ হসেন চৌধুরী, আইনজীবী ব্যারিস্টার শাকিলা ফারহানা,  শহিদুল ইসলাম মামুন, .দেওয়ান মোকাদ্দেম চৌধুরী, ডক্টর এম মুজিবুর রহমান, শামসুর রহমান মাহতাব, তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, ডালিয়া লাকুরিয়া, তোফায়েল বাসিত তপু, সুজাত আহমেদ, যুক্তরাজ্য যুবদলের সভাপতি রহিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন,  যুক্তরাজ্য সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, যুক্তরাজ্য আইনজীবী ফোরামের সভাপতি, আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ব্যারিস্টার আবুল মন্সুর শাহজাহান, জাসাসের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, যুক্তরাজ্য মহিলা দলের.সদস্যসচিব অঞ্জনা আলম,  কেন্দ্রীয় ছাত্র দলের সাবেক নেতা শফিকুল ইসলাম রিবলু, আব্দুর রকিব চৌধুরী, বিএনপি নেতা সাহেদ উদ্দিন চৌধুরী, সরফরাজ আহমেদ সরফু, সোহেল শরিফ মোহাম্মদ করিম, তুহিন মোল্লা, আব্দুল হক রাজ, বাকি বিল্লাহ জালাল, আকতার হোসেন শাহিন, মাহমুদ হাসান সাকিব, জাহাঙ্গীর আলম শিমু, জিয়াউর রহমান জিয়া, আমিনুল ইসলাম, আসমা জামান, সৈয়দা নাসিমা, নিলা বেগম, কাজী তাজ উদ্দিন আকমল, সিরাজুল ইসলাম মামুন, নিয়ামুল হক মাক্সিম, শাজাহান আহমেদ, হাসান  আহমেদ, ফজলে রহমান পিনাক,আতিকুর রহমান, ফয়েজ উল্লাহ, আহসানুল হক আম্বিয়া প্রমুখ।  

মহান মুক্তিযুদ্ধের কিংবদন্তি, কীর্তিনারায়ণ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা, দৈনিক মাতৃভূমি পত্রিকার প্রতিষ্টাতা সম্পাদক ও প্রকাশক এবং নবীগঞ্জের কৃতি সন্তান মেজর অব. সুরঞ্জন দাশ ও তাঁর সহধর্মিণী কীর্তিনারায়ণ কলেজের সহ-প্রতিষ্ঠাতা সুপর্না দাশের আকষ্মিক মৃত্যুতে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদও উদ্দ্যেগে শোক বই উদ্বোধন করা হয়েছে। এসময় বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অবঃ)সুরঞ্জন দাশের আতœার শান্তি কামনায় ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। অনুষ্টানে উপস্থিত সকলে কালো ব্যাজ পরিধান করেন। সোমবার (০৮ আগষ্ট) বিকেলে উপজেলা পরিষদের শোক বইয়ের উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম। এসময় উপস্থিত ছিলেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, করগাও ইউপি চেয়ারম্যান নির্মেলেন্দু দাশ রানা, বীর মুক্তিযোদ্ধা বিজয় ভূষন রায়, জালাল সিদ্দিকী, মোর্শেদুজ্জামান রশিদ, তাজ উদ্দিন, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আনোয়ার হোসেন মিঠু, উত্তম কুমার পাল, যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক লোকমান আহমদ খান, হাজ্বি খয়রুল বসর চৌধুরী, অধক্ষ্য তনুজ রায়, টিটু দাশ, বিপুল দেব, হরিপদ দাশ, মোঃ আলমগীর মিয়া, রতœদীপ দাশ রাজু,ফাহিমা আক্তার নিশা মলয় দাশ প্রমুখ। এসময় চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম সপ্তাহ ব্যাপি শোক বইতে শুভানুধ্যায়ী ও বিশিষ্টজনের মেজর অব. সুরঞ্জন দাশকে শ্রদ্ধা জানিয়ে মন্তব্য ও স্বাক্ষর প্রদান করার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান।

নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের প্রজাতপুর (নয়াপাড়া) গ্রামে একটি সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে মমিনা বেগম (৪৫) নামের এক অসহায় মহিলাকে তার স্বামীকে খুন করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে রাজি হওয়ার জন্য ১০ লক্ষ টাকা প্রদানের প্রস্তাব দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইনাতগঞ্জসহ সর্বত্র তোলপাড় চলছে। ওই প্রস্তাবে রাজি না হয়ে ওই মহিলা প্রথমে ইউপি চেয়ারম্যান ও পরে নবীগঞ্জ থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের প্রজাতপুর (নয়াপাড়া) গ্রামে বিগত ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার নির্বাচন নিয়ে বিরোধের জের গত ১০ জুন রাত সাড়ে ১১ টায় একই গ্রামের মজনু হোসেন শ্রাবন গং এবং মোস্তফাপুর গ্রামের সাফু আলমরা মেম্বার আজিম উদ্দিনকে মারধোর করে তার হাত ভেঙ্গে দেয়। এ ঘটনায় নবীগঞ্জ থানায় মামলাও হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রজাতপুর (নয়াপাড়া) গ্রামের মজনু হোসেন শ্রাবন, রুমন হোসেন আলকাই, মালু মিয়া, জীবন আলী ও রেজিয়া বেগম এবং মোস্তফাপুর গ্রামের সাফু আলম গত ৩ আগষ্ট রাত ১১ টার দিকে অভিযোগকারী মমিনা বেগমের বাড়িতে প্রবেশ করে তাকে প্রস্তাব দেয় তারা তার স্বামীকে খুন করিবে তার বিনিময়ে মমিনা ও তার ছেলেকে ১০ লক্ষ টাকা দিবে। মমিনারা প্রচার করিবে যে মেম্বার আজিম উদ্দিন ও তার লোকজন তার স্বামী আলেক উদ্দিনকে খুন করেছে। শ্রাবন গংদেও এহেন জঘন্য প্রস্তাবে মমিনা বেগম ও তার ছেলে রাজি হয়নি। এ ঘটনা উপস্থিত স্বাক্ষীসহ স্থানীয় চেয়ারম্যান নোমান হোসেনকে জানালে তিনি থানা অথবা কোর্ঠে মামলা করার পরামর্শ দেন। শ্রাবন গংদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তারা চলে যাওয়ার সময় ঘটনা কাউকে বললে তাদের ক্ষতি হবে বলে হুমকি দিয়ে যায়। পরে মমিনা বেগম বাদি হয়ে শ্রাবন গং ৬ জনের বিরুদ্ধে গত শনিবার রাতে নবীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় ইনাতগঞ্জসহ নবীগঞ্জের সর্বত্র তোলপাড় চলছে।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবে যেতে হলে সৌদি দূতাবাসে গিয়ে দিতে হবে আঙ্গুলের চাপ। শনিবার আঙ্গুলের চাপ দেয়ার শেষদিন তাই সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, সিলেটসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ২০-২৫ জন মহিলা আঙ্গুলের চাপ দিতে আসছেন হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন পরিষদে। ফরম ফিলআপের পর অধিকাংশ মহিলা দিয়েছেন আঙ্গুলের চাপও। এভাবেই অভিনব প্রতারণার ফাঁদে ফেলে সৌদি যেতে আগ্রহী নারীদের কাছ থেকে একটি সঙ্ঘবদ্ধ চক্র হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা। শনিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়ন পরিষদে ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রমের ফাঁকে এমন প্রতারণা করতে গিয়ে আটক করা হয়েছে নির্বাচন কমিশনের অপারেটরসহ ৩ জন। জব্দ করা হয়েছে নির্বাচন কমিশনের আঙ্গুলের চাপ গ্রহণ পরবর্তী নতুন ভোটার হওয়ার ৬৫টি স্লিপসহ বিভিন্ন জাতীয় পরিচয় পত্র। 
আটককৃতরা হলেন- নির্বাচন কমিশনের ভোটার হালনাগাদের প্রজেক্টের কম্পিউটার অপারেটর বানিয়াচং উপজেলার জমশেদ মিয়া (৩০), সুনামগঞ্জ পৌরসভার ইকড়ছই গ্রামের আবু সুফিয়ান (৩৫), মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ফাহিম চৌধুরী (২৮)। প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগীরা জানায়- গত (৪ আগস্ট) থেকে নবীগঞ্জের বাউসা ইউনিয়নে চলছিল নতুন ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রম।  শনিবার (৬ আগস্ট) শেষদিনে অন্যান্য দিনের ন্যায় নতুন ভোটার হওয়ার ফরমে ঠিকানা জন্মনিবন্ধন নাম্বারসহ প্রয়োজনীয় তথ্য দেয়ার পর আঙ্গুলের চাপ দিচ্ছিলেন ওই ইউনিয়নের নতুন ভোটাররা। এ সময় নির্বাচন কমিশনের ভোটার হালনাগাদের প্রজেক্টের কম্পিউটার অপারেটর জমশেদ মিয়া নতুন ভোটার হওয়ার ফরমে ঠিকানা, জন্ম নিবন্ধন নাম্বারের তথ্য অপূরণ রেখেই সুনামগঞ্জের সুলতানা আক্তার সুমীকে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা ইউনিয়নের নতুন ভোটার  করার জন্য আঙ্গুলের চাপ গ্রহণ করেন।এরপর নেত্রকোনার ফাহিমা ও বিশ্বনাথের রিমা বেগমের আঙ্গুলের চাপ দেয়ার সময় অপরিচিত দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে আবু সুফিয়ান, ফাহিম চৌধুরী ও ৩ মহিলাকে আটক করা হয়। এ সময় মোফাজ্জল নামে এক ব্যক্তি ২২জন নারীসহ পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার ওসি ডালিম আহমেদ, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সন্ধ্যা ৭টার দিকে জমশেদ মিয়া (৩০), সুনামগঞ্জ পৌরসভার ইকড়ছই গ্রামের আবু সুফিয়ান (৩৫), মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার ফাহিম চৌধুরী (২৮)কে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।সুনামগঞ্জের সুলতানা আক্তার সুমী জানান- আমি ৩ বছর সৌদি আরবে ছিলাম, ১ বছর পূর্বে দেশে এসেছি। আবার আমাকে সৌদি আরব পাঠানোর কথা বলে চলতি বছরের এপ্রিল মাসে আবু সুফিয়ান নামে এক দালাল ১৫ হাজার টাকাসহ পাসপোর্ট নেয়, সুফিয়ান জানায় সৌদি যেতে হলে অ্যাম্বেসিতে আঙ্গুলের চাপ দিতে হবে। তাই সুফিয়ান তার সহযোগী মোফাজ্জল মিয়া ও ফাহিম চৌধুরীর মাধ্যমে সৌদি আরবে যেতে ইচ্ছুক আমিসহ সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, সিলেটসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ২৫জন নারীকে আঙ্গুলের চাপ দেয়ার জন্য সৌদি অ্যাম্বেসিতে নিয়ে যাওয়ার জন্য দুটি মাইক্রোবাসে করে এখানে নিয়ে এসেছে, আমি আঙ্গুলের চাপও দিয়েছি। নেত্রকোনার ফাহিমা আক্তার বলেন- আমি চট্টগ্রামে একটি গামেন্টেমে চাকুরী করি, সৌদি আরবে নেয়ার নাম করে সুফিয়ান নামে এক দালাল আমার কাছ থেকে ১২ হাজার টাকা নেয়। শনিবার সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য আঙ্গুলের চাপ দেয়ার শেষদিন এমন কথা বলে চট্টগ্রাম থেকে আমাকে এখানে আঙ্গুলের চাপ দেয়ার জন্য নিয়ে আসা হয়েছে। ঝামেলার জন্য আমি আঙ্গুলের চাপ দেইনি।রিমা বেগম বলেন- সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, সিলেটসহ বিভিন্ন স্থান থেকে আমিসহ ২৫ জন মহিলা সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য ৪০-৫০ হাজার টাকা করে কয়েক লাখ টাকা সুফিয়ান তার সহযোগী মোফাজ্জল মিয়া ও ফাহিম চৌধুরীর কাছে দিয়েছি। আজ ফিঙ্গার দেয়ার জন্য এখানে নিয়ে এসেছে। আমরা গ্রামের মানুষ আমরা তো আর বুঝিনি যে বিদেশের জন্য ফিঙ্গার দিতে এনে এখানে আমাদের নতুন ভোটার করাচ্ছে।আজিজুর রহমান নামে স্থানীয় এক যুবক জানান- ৩ দিন ধরে চলছে নতুন ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রম, আজকে শেষদিনে অন্যান্য জেলার বাসিন্দাদের বাউসা ইউনিয়নের ভোটার করার জন্য নিয়ে আসা হলে প্রতারণার এক পর্যায়ে ধরা পড়ে। বাহিরের জেলার কতজন আঙ্গুলের চাপ দিয়ে বাউসা ইউনিয়নের নতুন ভোটার হিসেবে সার্ভারের তথ্য গিয়েছে তা কিভাবে নির্ণয় করবে নির্বাচন কমিশন। এঘটনায় তিনি জড়িতদের শাস্তির দাবী জানান। বাউসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাদিকুর রহমান শিশু মিয়া বলেন- বিভিন্ন জেলা থেকে  তথ্য গোপন করে বাউসা ইউনিয়নে ভোটার করার জন্য কয়েকজন দালাল ও নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তাদের যোগসাজসে আমার ইউনিয়নে নিয়ে আসা হয়, আঙ্গুলের চাপ দেয়ার সময় গ্রাম পুলিশ ও স্থানীয় মানুষ অপরিচিত দেখে তাদেরকে আটক করে। 
এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন- ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রমের ফাঁকে অন্যান্য উপজেলার নাগরিকদের নবীগঞ্জের বাউসা ইউনিয়নে নাগরিক করার জন্য ভোট তোলা হচ্ছে এমন সংবাদে ঘটনাস্থলে এসে এর প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছি, বাউসা কেন্দ্রের টিম লিডার মতিউর রহমান বাদী হয়ে আটককৃত দালাল চক্র ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে, আমাদের কেউ জড়িত থাকলে অবশ্যই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেন- যারা আজকে ভোটার হয়েছেন তাদের তথ্য অফলাইনে রয়েছে, উদ্ধার হওয়া স্লিপ এর সিরিয়াল নাম্বার অনুযায়ী তথ্য যাচাই-বাছাই করে এগুলো বাদ দেয়া হবে, দ্বিতীয়বার ভোটার হওয়ার সুযোগ নেই। নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ডালিম আহমেদ বলেন- সৌদি যাওয়ার জন্য অ্যাম্বাসিতে আঙ্গুলের চাপ দেয়ার নাম করে একটি চক্র বিভিন্ন জেলা থেকে মহিলাদের বাউসা ইউনিয়ন অফিসের চলমান নতুন ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রমে নিয়ে আসে। এখানে নতুন ভোটার হওয়ার ফরমে পর্যাপ্ত পরিমান প্রয়োজনীয় তথ্য না দিয়েই অন্যান্য জেলার মহিলাদের আঙ্গুলের চাপ গ্রহণ করা হয়। এ ঘটনায় কম্পিউটার অপারেটরসহ ৩জন প্রতারককে আটক করা হয়েছে, মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
 
 
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular