October 5, 2022
প্রবাস

প্রবাস (4)

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী  মাদার অফ ডেমোক্রেসি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও অভিলম্বে বিদেশে উন্নত চিকিৎসা এবং নিশিরাতের অবৈধ সরকারের লেলিয়ে দেওয়া  পুলিশের গুলিতে নিহত ভোলা জেলা  ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলম এবং  স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা আব্দুর রহিমের হত্যার প্রতিবাদে  বিক্ষোভ সমাবেশে করেছে যুক্তরাজ্য বিএনপি। গত ৮ সোমবার ১০ ডাউনিং স্ট্রীটের সামনে এই বিক্ষোভ কর্মসূচীর ডাক দেয় যুক্তরাজ্য বিএনপি। যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এই বিক্ষোভ সমাবেশে  যুক্তরাজ্য বিএনপি, জোনাল কমিটি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী অংশগ্রহণ করেন। উপস্থিত নেতা-কর্মীরা বিভিন্ন স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড, ব্যানার, ফেস্টুন প্রদর্শন করেন এবং মাদার অব ডেমোক্রেসি দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবী  এবং স্বৈরাচারী সরকারের পুলিশের গুলিতে নিহত বিএনপি নেতাদের হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সভাপতির বক্তবে এম এ মালিক বলেন, “মাদার অফ  ডেমোক্রেসি” বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা  জিয়া আজ গুরুতর অসুস্থ । রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে নিশিরাতের স্বৈরাচারী সরকার সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে মাদার অব ডেমক্রেসি দেশনেত্রীকে কারাবন্দী করে উন্নত চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত  করছে । স্বৈরাচারী সরকার পুলিশের উপর ভরসা করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায় কিন্তু  এই দিন শেস হয়ে গেছে। আজ বাংলাদেশ্র আপামর জনগন জেগে উঠেছে। পুলিশের এই বর্বর হত্যাকাণ্ডের বিচার একদিন বাংলাদেশের মাটিতে হবে।  তিনি অনতিবিলম্বে সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশ উন্নত চিকিৎসা ও নি:শর্ত মুক্তি দাবী করেন। সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ  বলেন, স্বৈরাচারী  সরকারের দুর্নীতি, ডাকাতি, হত্যা, লুন্ঠন, ধর্ষণ, অত্যাচার নির্যাতনে দেশের মানুষ আজ দিশেহারা। স্বৈরাচারী সরকারের পতন অতি সন্নিকঠে উল্লেখ করে তিনি বলেন, গণতন্ত্র পূনরুদ্ধার ও  জনগণের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।  স্বৈরাচারী সরকারের পুলিশের গুলিতে নিহত বিএনপি নেতাদের হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, নিহত বিএনপি নেতাদের রক্ত বৃথা যাবে না । তিনি অনতিবিলম্বে সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশ উন্নত চিকিৎসা ও নি:শর্ত মুক্তি দাবী করেন।  উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম, নির্বাহী সদস্য ব্যারিস্টার মীর হেলাল, যুক্তরাজ্য বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস, উপদেষ্টা আব্দুল হামিদ চৌধুরী, সহসভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব, আলহাজ্ব তৈমুছ আলী, তাজুল ইসলাম, ব্যারিস্টার কামরুজ্জামান, সলিসিটর ইকরামুল হক মজুমদার, আতিকুর রহমান চৌধুরী পাপ্পু, আবেদ রাজা, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক পারভেজ মল্লিক, যুগ্ম সম্পাদক ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, খসরুজ্জামান খসরু, মিসবাহুজ্জামান সোহেল, ডক্টর মুজিবুর রহমান, আজমল হোসেন চৌধুরী জাবেদ, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মামুন, নাসিম আহমেদ চৌধুরী, কামাল উদ্দিন, সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ হোসেন চৌধুরী, ঢাকাদক্ষিণ বিএনপি’র সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন টিপু, শামসুর রহমান মাহতাব, তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, আব্দুল বাসিত বাদশা, বাবুল আহমেদ চৌধুরী, সালেহ আহমেদ জিলান, নাজমুল ইসলাম লিটন, এডভোকেট খলিলুর রহমান, টিপু আহমেদ, সহ দপ্তর সম্পাদক সেলিম আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোশাহিদ আলী তালুকদার, যুবদলের সভাপতি রহিম উদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিন, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, যুক্তরাজ্য বিএনপি’র সদস্য আমিনুর রহমান আকরাম, এম এ সালাম, জাসাসের সাবেক সভাপতি এবাদুর রহমানের এমাদ, সাবেক সাধারন সম্পাদক ইকবাল হোসেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শফিকুল ইসলাম রিবলু, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক এমতিয়াজ এমাম তানিম, সেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক কামাল মিয়া, সমাজ কলান সম্পাদক এ জে লিমন, আব্দুস শহীদ, ব্যারিস্টার আলিমুল হক লিটন, শিবলী শহীদ খোশনবিশ, সহপ্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এম আরিফ আহমেদ, ইস্ট লন্ডন বিএনপির সভাপতি ফখরুল ইসলাম বাদল, সাধারণ সম্পাদক এস এম লিটন, লন্ডন নর্থ ওয়েস্ট বিএনপির সভাপতি হাজী এম এ সেলিম, সাধারণ সম্পাদক গিয়াস আহমেদ, কেন্ট বিএপির সভাপতি আব্দুল হান্নান, সাধারণ সম্পাদক রুহুল ইসলাম রুলু, লন্ডন মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খালেদ চৌধুরী, সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ, মির্জা নিক্সন, নাজমুল হোসেন চৌধুরী, শরিফ উদ্দিন ভুঁইয়া বাবু, পাশা মিয়া, যুবদল নেতা বাকি বিল্লাহ জালাল, আক্তার হোসেন শাহিন, শাহজাহান আলম, বাবর চৌধুরী, জিয়াউল ইসলাম, নুরুল আলী রিপন, সেচ্ছাসেবক দল নেতা জাহাঙ্গীর আলম শিমু, জিয়াউর রহমান জিয়া, আকমল হোসেন, ইব্রাহিম আলী, আশারাফ হোসেন, মসুদ আহমদ, নুর মিয়া,ফজলে রহমান পিনাক,শ্রমিক নেতা আব্দুস সামাদ রাজ, জনি আহমেদ, মোঃ ফয়েজ উল্লাহ প্রমুখ।

সাবেক মন্ত্রী ও নৌবাহিনী প্রধান রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের ৩৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল ৭ আগস্ট  রবিবার  বাদ আছর  পুর্বলন্ডনের রিজেন্টস লেকে  অনুষ্ঠিত হয়। রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খান স্মৃতি সংসদ যুক্তরাজ্য শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভা. খতমে কোরআন, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে যোগদেন মরহুমের জামাতা ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান ও মরহুমের কনিষ্ঠ কন্যা ডাঃ জুবাইদা রহমান।মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে আগত সকল অতিথি ও সংগঠনের সকল কে ধন্যবাদ জানিয়ে দোয়া কামনা করেন রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের জামাতা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমান ।স্মৃতি সংসদের সভাপতি সোহেল আহমেদ সাদিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবেদ রাজার পরিচালনায় দোয়াপূর্ব মরহুমের জীবন ও কর্মের উপর সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, বিসিএর সাবেক প্রেসিডেন্ট ও কমিউনিটি নেতা পাশা খন্দকার এমবিই, যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি ও স্মৃতি সংসদের প্রধান উপদেষ্টা এম এ মালিক, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা কেএম আবু তাহের চৌধুরী. কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা  ব্যারিস্টার এম এ সালাম, নিউহাম কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র আইনজীবী ব্যারিস্টার নজির আহমদ, মেজর (অবঃ) আবু বক্কর সিদ্দিক । দোয়া মাহফিলে দেশের কৃতিসন্তান রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয় এবং মরহুমের পরিবারের সকল সদস্যের সুস্বাস্থ্য ও উত্তোরত্তোর সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। এছাড়া দোয়া মহফিলে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও আরাফত রহমান কোকোর রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের সুস্বাস্থ্য কামনাসহ সমগ্র দেশবাসীর জন্য বিশেষ মুনাজাত করা হয়।দোয়া পরিচালনা করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা হাবিবুর রহমান । এছড়াও  পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও তাফসীর করেন মাওলানা আবুল কাহার, মাওলানা হাবিবুর রহমান ও হাফেজ আবিদ মোহাম্মদ।দোয়া মাহফিলে স্মৃতি সংসদের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন স্মৃতি সংসদের উপদেষ্টা আব্দুল মুকিত. সিনিয়র সহ-সভাপতি কামাল উদ্দিন.সহ সভাপতি ফয়ছল আহমদ.সহ সভাপতিখসরুজ্জামান খসরু, আসাদুজ্জামান আহমেদ, সেলিম আহমেদ, মুস্তাক আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমাদুর রহমান এমাদ, খালেদ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহনাজ হোসেন শেনাজ, মাহবুব খান নোমান,  সহ সংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মাসুক. সহ সংগঠনিক সম্পাদক   রুমেল আহমেদ, সহ সংগঠনিক সম্পাদক  বসির আহমেদ ফয়ছল, সহ সংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আলী রিপন, প্রচার সম্পাদক এম আরিফ আহমেদ,  মতিউর রহমান,  আব্দুস সামাদ রাজ, সামছুল ইসলাম, সিহাব উদিদন, শেরওয়ান আলী ।রিয়ার এডমিরাল মাহবুব আলী খানের ৩৮ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দেশে ও বিদেশে গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচির বিষয়ে সকল অবহিত করে মরহুমের জ্যেষ্ঠ মেয়ে শাহিনা জামান খানের প্রেরিত প্রেস রিলিজ পাঠ করেন সাংবাদিক মাহফুজুর রহমান এবং মরহুমের স্মৃতির স্মরণে কনিষ্ঠ কন্যা ডাঃ জুবাইদা রহমানের  লিখিত কবিতা পাঠ করেন  রাসেল শাহরিয়ার । কমিউনিটির বিশিষ্ট মুরব্বীসহ দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাওয়ার হেমলেট কাউন্সিলের সাবেক ডেপুটি মেয়র  কাউন্সিলর অহিদ আহমেদ, বিএনপির  কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, যুক্তরাজ্য বিএনপি'র সাধারন সম্পাদক কয়সর এম আহমদ, যুক্তরাজ্য বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছ, যুক্তরাজ্য বিএনপি'র সিনিয়র সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সহ সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব, তৈমছু আলী, প্রফেসর ফরিদ উদ্দিন, মোঃ গোলাম রাব্বানি, গোলাম রাব্বানি সোহেল, মো: তাজুল ইসলাম, সলিসিটর একরামুল মজুমদার. আতিকুর রহমান চৌধুরী পাপ্পু, উপদেষ্টা ফয়জুল হক, বশির আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ন সম্পাদক পারভেজ মল্লিক, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ খান, মিসবাহউজ্জমান সোহেল, সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এমদাদ হসেন চৌধুরী, আইনজীবী ব্যারিস্টার শাকিলা ফারহানা,  শহিদুল ইসলাম মামুন, .দেওয়ান মোকাদ্দেম চৌধুরী, ডক্টর এম মুজিবুর রহমান, শামসুর রহমান মাহতাব, তাহির রায়হান চৌধুরী পাভেল, ডালিয়া লাকুরিয়া, তোফায়েল বাসিত তপু, সুজাত আহমেদ, যুক্তরাজ্য যুবদলের সভাপতি রহিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন,  যুক্তরাজ্য সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নাসির আহমেদ শাহিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন, যুক্তরাজ্য আইনজীবী ফোরামের সভাপতি, আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ব্যারিস্টার আবুল মন্সুর শাহজাহান, জাসাসের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন, যুক্তরাজ্য মহিলা দলের.সদস্যসচিব অঞ্জনা আলম,  কেন্দ্রীয় ছাত্র দলের সাবেক নেতা শফিকুল ইসলাম রিবলু, আব্দুর রকিব চৌধুরী, বিএনপি নেতা সাহেদ উদ্দিন চৌধুরী, সরফরাজ আহমেদ সরফু, সোহেল শরিফ মোহাম্মদ করিম, তুহিন মোল্লা, আব্দুল হক রাজ, বাকি বিল্লাহ জালাল, আকতার হোসেন শাহিন, মাহমুদ হাসান সাকিব, জাহাঙ্গীর আলম শিমু, জিয়াউর রহমান জিয়া, আমিনুল ইসলাম, আসমা জামান, সৈয়দা নাসিমা, নিলা বেগম, কাজী তাজ উদ্দিন আকমল, সিরাজুল ইসলাম মামুন, নিয়ামুল হক মাক্সিম, শাজাহান আহমেদ, হাসান  আহমেদ, ফজলে রহমান পিনাক,আতিকুর রহমান, ফয়েজ উল্লাহ, আহসানুল হক আম্বিয়া প্রমুখ।  

যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির একটি মুদি দোকানে বন্দুকধারীর গুলিতে পুলিশসহ ৬ জন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার দুপুরে হাডসন নদীর পারে ওই গোলাগুলির ঘটনায় পুলিশ এলাকার স্কুল ও অফিসগুলো দ্রুত বন্ধ করে দেয়।
পুলিশ ও স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়, গোলাগুলিতে একজন পুলিশ কর্মকর্তা, দুজন সন্দেহভাজন বন্দুকধারীসহ কমপক্ষে ৬ জন নিহত হয়েছে। পুলিশ প্রধান মাইকেল কেলি বলেছেন, নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে তিনজন সাধারণ মানুষ ও দুজন সন্দেহভাজন দোকানের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হন। বন্দুকযুদ্ধের সময় পুলিশের গোয়েন্দা কর্মকর্তা পুলিশ অফিসার জোসেফ সিলসমারা যান। এ সময় শত শত রাউন্ড গুলি বিনিময় হয়েছে। প্রায় চার ঘণ্টা ধরে গোলাগুলির ঘটনা চলেছে। ধারণা করা হচ্ছে, সাধারণ মানুষকে দোকানের ভেতর জিম্মি করেছিল বন্দুকধারীরা। পুলিশ অবশ্য এখনই এ ঘটনাকে ‘সন্ত্রাসী হামলা’ বলে উল্লেখ করেনি। হাডসন কাউন্টি কৌঁসুলির অফিস থেকে জানানো হয়েছে, গোলাগুলির ঘটনায় আরও দুজন পুলিশ কর্মকর্তা ও একজন বেসামরিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। ঘটনা জানার পর স্থানীয় সোয়াট টিমের সদস্য ও ফেডারেল এজেন্টরা দ্রুত ঘটনাস্থলে যান। নিউইয়র্ক সিটি পুলিশ বিভাগ থেকে দ্রুত জরুরি সেবা চালু করা হয়। জার্সি সিটির সব স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। পরে অবশ্য খুলে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক টুইটে বলেন, নিউ জার্সির জার্সি সিটিতে ঘটা গোলাগুলির খবর তিনি জেনেছেন। এই বেদনাদায়ক দুঃসময়ে তিনি হতাহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। পরিস্থিতি টানা পর্যবেক্ষণ করা হবে বলে তিনি জানান। ট্রাম্প বলেন, স্থানীয় কর্মকর্তাদের এ কাজে সহযোগিতা করা হচ্ছে।



শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি)তে চান্স পেয়েও ভর্তি অনিশ্চিত দোয়ারবাজারের অধম্য মেধাবী পিতৃহীন ঝরণা আক্তারের ভর্তির দায়িত্ব নিলেন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় অনলাইন নিউজপোর্টাল আওয়াজ বিডির সম্পাদক শাহ আহমদ সাজ। ইতোমধ্যে ঝরণা আক্তার ও তার পরিবারের সাথে কথা বলেছেন তিনি। শীঘ্রই আওয়াজ বিডির সিলেট ব্যুরো এমজেএইচ জামিলের মাধ্যমে তার কাছে ভর্তির টাকা তুলে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

জানা যায়, পরিবারের আর্থিক দৈন্যদশার কারণে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় ৩য় স্থান অর্জন করেও লেখাপড়া অনিশ্চিত হয়ে পড়ে সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের আগনরায়ের গাঁও গ্রামের মৃত হারিছ মিয়ার মেয়ে মেধাবী ঝরণা আক্তারের। গতকাল তাকে নিয়ে আওয়াজবিডি সহ বিভিন্ন পত্রিকায় একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদটি আওয়াজ বিডি সম্পাদকের দৃষ্টিগোচর হলে ঝরণার ভর্তির ব্যাপারে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।

ইতোমধ্যে ঝরনা আক্তার ও তার অভিভাবকের সাথে কথা বলেছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সিলেটের কৃতি সন্তান আওয়াজ বিডি সম্পাদক শাহ আহমদ সাজ। খুব শীঘ্রই আওয়াজ বিডির সিলেট ব্যুরোর মাধ্যমে মেধাবী ঝরনার কাছে শাবিতে ভর্তির টাকা তুলে দেয়া হবে। এছাড়াও ঝরনার ভবিষ্যত লেখাপড়ায় সব সময় তার পক্ষ থেকে সাধ্যমত সহযোগিতা করারও আশ্বাস দেন শাহ আহমদ সাজ।

  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular